বৃহস্পতিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি , ২০২০. ১২:১৯ পূর্বাহ্ণ,
Home সারা বাংলা ময়মন্সিংহ বিভাগ জামালপুরে ভাতিজার বউকে নিয়ে চাচা শশুরের কান্ড, স্থানীয় মাতাব্বরের নাটক

জামালপুরে ভাতিজার বউকে নিয়ে চাচা শশুরের কান্ড, স্থানীয় মাতাব্বরের নাটক

জামালপুরে ভাতিজার বউকে নিয়ে চাচা শশুরের কান্ড, স্থানীয় মাতাব্বরের নাটক
Spread the love

শাহীন আলমঃ জামালপুরের মেলান্দহে ভাতিজার বউকে নিয়ে পালানোর চেষ্টা কালেচাচা  শশুর ও ভাতিাজা বউকে হাতেনাতে আটক করে এলাকাবাসী। রাতভর চাচা শশুরের ঘরে আটক রাখার পর সকালে স্থানীয় এক মাতাব্বরের যোগ সাজশে মুক্ত হয় তারা। এলাকাবাসী সুত্রে জানা যায়, জেলার মেলান্দহ উপজেলার চর ঘোষেরপাড়া সীমান্তবর্তী এলাকার দুদিয়াগাছায় আলামিনের সাথে প্রায় ৪ বছর আগে বিয়ে হয় কাহেত পাড়া এলাকার গরু ব্যবসায়ী আয়নলের মেয়ে সোনিয়ার(ছদ্ধনাম)। বিয়ের পর হতেই পাশ^বর্তী রবিজলের ছেলে চাচা শশুর রুবেলের সাথে অবৈধসম্পর্ক চলে আসছিলো সনিয়ার(ছদ্ধনাম)। ১৩ মাসের একটি সন্তান থাকা সত্বেও এ অবৈধ সম্পর্ক চালিয়ে যায় তারা।সোনিয়ার(ছদ্ধনাম) স্বামী আল আমিন বিষয়টি জানার পর কয়েক দফায় নামধারী এসব মাতাব্বরদের জানালেও তাকে প্রমাণ নিয়ে আসতে বলেন তারা। এক পর্যায়ে শুক্রবার রাতে স্বামী আলামিনকে ঘুম পাড়িয়ে ঘোপনে চাচা শশুর রুবেলের ঘরে চলে যায় সোনিয়া(ছদ্ধনাম)। এরই মাঝে স্বামী আল আমিনের ঘুম ভাঙলে সোনিয়াকে(ছদ্ধনাম) না পেয়ে চাচা শশুরের ঘরে খোঁজ নেয় তারা। পরে তাদের দু জনকেই নগ্ন অবস্থায় দেখতে পেয়ে আশপাশের লোকজনেকে খবর দেন আলামিন। পরে এলাবাসী এসে চাচা শশুর রুবেলের নিজ ঘরে আটক করে তাদের।বিষটি নিয়ে স্থানীয় গণ মাধ্যম কর্মীরা ওই বাড়িতে জানতে গেলে তাদের বাধা প্রয়োগ করে নামধারী মাতাব্বর রাইহান উদ্দিন।এক পর্যায়ে বিষয়টি সেই মিমাংসা করবে বলে জানিয়ে গণ মাধ্যম কর্মীদের চলে যেতে বলেন তিনি। এ বিষয়ে নাম প্রকাশ্যে অনিচ্ছুক দুধিয়া গাছা এলাকার একব্যক্তি বলেন, রাইহানের ব্যবসায় এ্যাইডে। আপনেগরে খেদায় দিয়া দুই মিরে থেকে টেহা খাবো। আটক সোনিয় বলেন(ছদ্ধনাম) রুবেলের সাথে তার ৬-৭ মাসযাবত সম্পর্ক চলতেছে । আমার স্বামী জানার পর থেকে আমাকে  নানা প্রকার হুমকী দামকী দিয়ে আসতেছে।যার কারণে আমি রুবেলের কাছেই থাকমু।স্বামী আলামিন জানান, আমার বউয়ের এ সম্পর্ক আমি প্রায় ১ বছর যাবত জানি। মাতাব্বরদের বললে তারা আমার কাছে প্রমাণ চায়। আজকে কি হবো?চাচা শশুর রুবেল ঘটনার সত্বতা স্বীকার করে বলেন, যা হবার হইছে এখন বিচারে যা তাই হবো! তবে এমন অনৈতিক কাজের ঘোর বিরুদিতা করেন এলাকাবাসী। তারা বলেন এর সঠিক বিচার হওয়া প্রয়োজন । যাতে আর কোন লোক এমনর কাজ করার সাহস না পায়।


Spread the love